চট্টগ্রাম, , সোমবার, ২৫ মে ২০২০

মাহে রমজান ও করোনা

প্রকাশ: ২০২০-০৪-২৫ ১৯:৫৬:৩৯ || আপডেট: ২০২০-০৪-২৫ ১৯:৫৬:৩৯



ডাঃ শাহীন আবদুর রহমান

ইসলামিক ক্যালেন্ডারের নবম মাস হচ্ছে পবিত্র মাহে রমজান বা রমাদান। রমাদানের সাওম বা রোজা হচ্ছে ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে একটি এবং এটি ফরজ বা অবশ্যপালনীয়।

‘রমাদান’ শব্দটির উৎপত্তি আরবি ‘রমিদা’ বা ‘আর- রামাদ’ থেকে যার অর্থ হচ্ছে Scorching Heat বা প্রজ্জ্বলিত তাপ, যার মাধ্যমে খাঁটি হওয়া যায়। ইরান, পাকিস্তান বা তুরস্কে একে রমজান বলা হয়, কারন আরবি letter ض তাদের জন্য z.

ইসলামের পরিভাষায় নির্ধারিত সেহেরির শেষ সময় থেকে ইফতার শুরু করা পর্যন্ত পানাহার, তামাকদ্রব্য সেবন, যৌনাচার, যেকোনো পাপকর্ম থেকে বিরত থাকা এবং নামাজ, কোরআন তিলাওয়াত, সদকা বা দান করা সহ অন্যান্য ভাল কাজ ইত্যাদির মাধ্যমে নিজেকে খাঁটি বা পরিশুদ্ধ করার চেষ্টা করাই হচ্ছে রমজানের রোজা।

রমজানের রোজায় পানাহার থেকে বিরত থাকার কারণে একদিকে যেমন স্বাস্থ্য ঝুঁকি থাকে অন্যদিকে পুরাতন কোষ মরে গিয়ে নতুন কোষ সৃষ্টির মাধ্যমে শরীরে এবং ইনেট বা জন্মগত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতায় একটা ইতিবাচক পরিবর্তন সাধিত হয়।

করোনা পরিস্থিতিতে রমজানে আমাদের কি করণীয়?

করোনা পরিস্থিতিতে রমজানের রোজা পালনে তেমন কোন সমস্যা নেই। তবে কয়েকটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে।

🌷করোনা প্রতিরোধের প্রধানতম অস্ত্র হচ্ছে নিরাপদে ঘরে অবস্থান করা। তাই তারাবি, জুমার নামাজ সহ সব নামাজ অবশ্যই বাড়িতে পড়তে হবে। কোন অবস্থাতেই অতিরিক্ত সওয়াবের আশায় মসজিদে যাওয়া যাবে না। বৃহত্তর স্বার্থে এই আবেগের জায়গা থেকে আমাদের সরে আসতে হবে। আল্লাহ পাক সুযোগ দিলে আগামী বছর ইন শা আল্লাহ মসজিদে যাওয়া যাবে।

🌷প্রতি বছরের ন্যায় মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা যাবে না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঘরেই ইফতার করতে হবে।

🌷রাস্তার ধারে বা হোটেল রেস্টুরেন্টে ইফতারের পসরা সাজিয়ে বিক্রি করা যাবে না যাতে পাব্লিক গ্যাদারিং এর সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

🌷ইফতারি, সেহেরি সহ রমজানের যেই সময় খাবার গ্রহণ করা যায়, তখন প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করতে হবে। সবুজ ও রঙিন শাকসবজি, ভাত রুটির মত স্লো রিলিজ কার্বোহাইড্রেড, ভিটামিন সি, ডি, আয়রন ও জিংক সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করতে হবে।

🌷জাংক ফুড, অস্বাস্থ্যকর ড্রিংক পরিহার করতে হবে। এই সময়ে পানি স্বল্পতার কারণে শ্বাসনালী সহ সমস্ত মিউকাস আবরণী শুস্ক হয়ে যাবার ঝুঁকি থাকে। যার ফলে এসব ব্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে জীবাণু সহজে প্রবেশ করতে পারে। তাই ইফতার থেকে সেহরির সময় পর্যন্ত প্রচুর পানি ও স্বাস্থ্য সম্মত পানীয় পান করতে হবে।

🌷নিয়মিত হাত পরিস্কার করা, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা সহ অন্যান্য স্বাস্থ্য নির্দেশনা সমূহ পালন করতে হবে। নিজেদের থাকার ঘর, ব্যাবহৃত জিনিসপত্র নির্দেশনা মতে জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

🌷ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে ঝুঁকি একটু বেশি। এই সময়ে হাইপোগ্লাইসেমিয়া বা রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে ও একই নিয়মে খাবার গ্রহণ করা উচিত। অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তাদের ওষুধ গ্রহণের সময় ও মাত্রায় পরিবর্তন আনতে হয়। মিশরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয় সহ বেশির ভাগ ইসলামিক স্কলারের মতে রোজা রেখে ডায়বেটিস পরীক্ষা করতে কোন বাধা নেই। তাই ডায়বেটিস রোগীদের প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে নিয়মিত ডায়বেটিস পরীক্ষা করা উচিত।

🌷অন্যান্য সময়ের মতো রমজানে ও ইফতারের কিছুক্ষণ পর হালকা ব্যায়াম করা উচিত। তবে তারাবির নামাজ ও এক্ষেত্রে ভাল ভূমিকা পালন করে।

🌷ঘন ঘন করোনা সংক্রান্ত সংবাদ বা ফেসবুকের সত্য অসত্য স্ট্যাটাস বা লিংক দেখে মাথা খারাপ করার দরকার নেই। দিনে একবার বা দুইবার এ সংক্রান্ত আপডেট জানলেই চলবে। করোনা নিয়ে থিসিস বা পিএইচডি করারও কোন দরকার নেই। এই সময় মন ভাল রাখার জন্যে পরিবারের সদস্যদের সাথে কোয়ালিটি সময় ব্যয় করুন, মজা করুন এবং বুঝে কোরআন হাদিস পড়ার চেষ্টা করুন। ধর্মচর্চা করুন, ধর্মান্ধতা পরিহার করুন।

🌷সাধ্যমতো গরীব আত্মীয় স্বজন ও প্রতিবেশীদের দান সদকা করুন ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে যাকাত প্রদান করুন। রমজান মাসই হচ্ছে যাকাত বা সদকা প্রদানের উতকৃষ্ট সময়।

মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে কবুল করুন। আমিন।

লেখকঃ
শাহীন আবদুর রহমান
আরএমও,
সদর হাসপাতাল কক্সবাজার।


আর্কাইভ

MonTueWedThuFriSatSun
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
       
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930   
       
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031 
       
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
       
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
       
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
       
      1
2345678
23242526272829
3031     
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930 
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
      1
9101112131415
23242526272829
30      
   1234
567891011
12131415161718
       
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728